হিমালয়ের চেয়ে চার গুণ বিস্তৃত পর্বতমালার তথ্য জানালেন

হিমালয়ের চেয়ে চার গুণ বিস্তৃত পর্বতমালার তথ্য জানালেন , এশিয়া মহাদেশের বিশাল অংশ

জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে হিমালয় পর্বতমালা। হিমালয়ের চেয়েও বিস্তৃত পর্বতমালা যে একসময় পৃথিবীতে ছিল,

তার প্রমাণ পেলেন অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। তাঁরা সেই বিস্তৃত পর্বতমালাকে

বলছেন ‘মহাপর্বতমালা’। গবেষকদের দাবি, পৃথিবীর গঠনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে মহাপর্বতমালা।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ distonews.com

হিমালয়ের চেয়ে চার গুণ বিস্তৃত পর্বতমালার তথ্য জানালেন

সম্প্রতি একটি ভূতাত্ত্বিক গবেষণা জার্নালে ওই মহাপর্বতমালা নিয়ে প্রবন্ধ প্রকাশ হয়েছে। হিমালয়ের চেয়ে

চার গুণ বেশি এলাকাজুড়ে বিস্তৃত ছিল সেটি। হিমালয়ের বিস্তৃতি দুই হাজার ৩০০ কিলোমিটার। সেই

তুলনায় সদ্যঃসন্ধান জানতে পারা পর্বতমালার বিস্তৃতি ছিল আট হাজার কিলোমিটার।

পৃথিবী সৃষ্টির ইতিহাসে দুটি পর্বে ওই পর্বতমালা গঠিত হয়েছিল বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। তারা বলেছেন,

প্রথমবার গঠিত হয়েছিল ২০০ কোটি থেকে ১৮০ কোটি বছর আগে এবং দ্বিতীয়বার এর গঠনপ্রক্রিয়া শুরু হয়

৬৫ থেকে ৫০ কোটি বছর আগে। গবেষকরা আরো বলেছেন, ওই পর্বতমালা দুবার গঠিত হওয়ার সঙ্গে পৃথিবীর

বিবর্তনের ইতিহাস জড়িত আছে। ‘আর্থ অ্যান্ড প্ল্যানেটারি সায়েন্স লেটার্স’ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে,

সুউচ্চ পর্বতমালার শিকড়ে বেশ কিছু বিরল খনিজ উপাদানের সন্ধান পাওয়া গেছে। সেগুলো সাধারণত তীব্র চাপের

মধ্যে তৈরি হয়েছে। তা থেকেই গবেষকরা মনে করছেন, ‘মহাপর্বত’-এর উত্থানের সঙ্গে পৃথিবীর বিবর্তন যুক্ত রয়েছে।

গবেষকদের মতে, জীবের বিবর্তনের ক্ষেত্রেও

ওই ‘মহাপর্বতমালা’র ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। যখন পর্বতগুলো ক্ষয়প্রাপ্ত হয়, সেগুলো সমুদ্রে ফসফরাস এবং লোহার মতো প্রয়োজনীয় পদার্থ সরবরাহ করে।

সেগুলো জৈবিক চক্রকে গতি এবং বিবর্তনকে আরো জটিলতার দিকে নিয়ে যায়। ‘মহাপর্বতমালা’গুলোর অস্তিত্বের কারণে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের মাত্রা বেড়ে গেছে বলেও গবেষকরা জানিয়েছেন।

এর ফলে জীব ও উদ্ভিদ জগতের টিকে থাকা ও বিবর্তন সম্ভব হয়েছে।
কাজের বিরতিতে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন জয়। সে সময় এই তথ্য দেন অভিনেতা। তবে কে বা কারা তালা পরিবর্তন করেছেন সে বিষয়ে কারো নাম উল্লেখ করেননি। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শিল্পী জানালেন,

নিপুণ যেদিন আপিল বোর্ডের রায় নিয়ে শিল্পী

সমিতিতে ঢুকেছেন সেদিনই আগের তালা বদলে নতুন তালা লাগিয়েছেন। শুধু তাই নয়, বদলে ফেলেছেন বসার চেয়ারও।
প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমা প্রার্থনা প্রত্যক্ষ করার জন্য ব্রিটানি হিগিন্স হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস পাবলিক গ্যালারিতে বসেছিলেন। বিরোধীদলীয় নেতা এবং অন্যান্যদের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চান মরিসন।

হিমালয়ের চেয়ে চার গুণ বিস্তৃত পর্বতমালার তথ্য জানালেন

মরিসন বলেছেন, আমি দুঃখিত, আমরা দুঃখিত। এখানে ঘটে যাওয়া ভয়ঙ্কর বিষয়গুলোর জন্য আমি হিগিন্সের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি। যে জায়গা নিরাপত্তার জায়গা হওয়া উচিত ছিল, সেটাই দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।

তিনি আরও বলেছেন, আমি অনেক বেশি দুঃখ পেয়েছি। হিগিন্সের আগের (নিপীড়িত) সবার কাছে … কিন্তু তাঁর কথা বলার সাহস ছিল এবং সে কারণে আমরা এখানে

Leave a Reply

Your email address will not be published.